Home / বিনোদন / জানলে আপনিও অবাক হয়ে যাবেন, প্রভা সম্পর্কে যা বলেছেন সাবেক তিন স্বামী!

জানলে আপনিও অবাক হয়ে যাবেন, প্রভা সম্পর্কে যা বলেছেন সাবেক তিন স্বামী!

সময়টা ২০১০ সাল। সে বছর এপ্রিল মাসের ১৬ তারিখে দীর্ঘদিনের প্রেমিক রাজীবের সঙ্গে বাগদান হয়েছিল আলোচিত মডেল অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভার। বাগদান হলেও বিয়ে হয়নি তাদের। সম্পর্কে ভাটা পড়ে অভিনেতা অপূর্বর সঙ্গে নতুন প্রেমকাহিনীর কারণে। যথারীতি তাই হলো। অনামিকায় রাজীবের দেয়া আংটি খুলে রেখে অপূর্বর সঙ্গে পালিয়ে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন প্রভা।

প্রভার সঙ্গে অপূর্বর বিয়ের কিছুদিন পরই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠলেন রাজীব। তারপরের ঘটনা কারও অজানা নয়। অপূর্বর ঘরণী হওয়ার আগে প্রেমিক রাজীবের সঙ্গে কাটানো অন্তরঙ্গ মুহূর্ত ফাঁস হয়ে যায় ইউটিউবে। ২৭ মিনিটের একটি ভিডিও মুহূর্তেই মানুষের হাতে হাতে পৌঁছে দেন রাজীব। এ নিয়ে দেশ-বিদেশে শুরু হয় তুমুল বিতর্ক।

কিছুদিন পর অবশ্য সে ভিডিওটি ইউটিউব থেকে মুছে দেয়া হয়। হলেই কি! মানুষের যা দেখার তো সেটা দেখেই নিয়েছেন। এরই জের ধরে ইতি টানলো প্রভা-অপূর্বর সাজানো নতুন সংসার। ২০১১ সালের ১১ই ফেব্রুয়ারি তারা বিচ্ছেদে চলে যান। মূলত অপূর্বই প্রভাকে ডিভোর্স দিয়েছেন। এরপর টানা তিন বছর লাপাত্তা এ অভিনেত্রী। মিডিয়া থেকে দূরেই সরে যান প্রভা।

অবশ্য এর মধ্যে ২০১১ সালের ১৯শে ডিসেম্বর দ্বিতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে বসেন তিনি। একটি করপোরেট কোম্পানির কর্মকর্তা মাহমুদ শান্তর সঙ্গে নতুন জীবন শুরু করেন প্রভা। টানা তিন বছর মিডিয়া থেকে দূরে থেকে ২০১৪ সালে আবারও আসেন। অতীতের সব গ্লানি মুছে নিজেকে নতুন করে মিডিয়ার সহযাত্রী হিসেবে যাত্রা শুরু করেন তিনি।

শান্তকে বিয়ে করলেও সংসার খুব বেশিদিন করেননি প্রভা। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে শোনা যাচ্ছে, শান্তর সঙ্গে সংসার করছেন না প্রভা। ২০১৫ সালের মাঝামাঝিতেই ডিভোর্স হয়েছে তাদের।

কয়েকটি ঘনিষ্ঠ সূত্র নিশ্চিত করেছিলেন, প্রভার এলোমেলো চলাফেরায় বেশ বিরক্ত ছিলেন শান্ত। শুটিংয়ের নামে বেশিরভাগ রাতই বাইরে কাটাতেন প্রভা। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে ঝগড়াও হয়। কিন্তু সমঝোতায় না আসায় একপর্যায়ে বিচ্ছেদে রূপ নেয়। টানাপড়েন চলতে থাকে। এ ব্যাপারে শান্তকে জিজ্ঞেস করা হলে কোনো মন্তব্য করা থেকে তিনি বিরত থাকেন। এখন শোনা যাচ্ছে অন্য একজনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়িয়ে চলেছেন অপ্রচলিত কৌশলে।

About Admin Rafi

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *