Breaking News
Home / Uncategorized / মনগড়া সংবাদের ফাঁদে এমপি পাপুল- দাবি পরিবারের

মনগড়া সংবাদের ফাঁদে এমপি পাপুল- দাবি পরিবারের

নিজস্ব প্রতিনিধি
এমপি পাপুলর বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন মিডিয়া মনগড়া সংবাদ পরিবেশন করছে বলে দাবি করে তার পরিবারের সদস্যরা। তার পরিবারের সূত্রে জানা যায়, গত ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝিতে কুয়েতের আল কাবাস পত্রিকার সুত্র ধরে বাংলাদেশের মানবজমিন পত্রিকা নিউজ করে” কুয়েত থেকে বাংলাদেশি এম পি লাপাত্তা”। এরপর গত ৬ জুন মারাফি কুয়েতিয়া কোম্পানির কয়েকজন শ্রমিকের দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয় কাজী পাপুল এমপিকে, আরব নিউজের সুত্রে এই নিউজ ছাপা হয় বাংলাদেশে, কিন্তু তাঁদের নিজশ্ব কোন সোর্স ছিলোনা, এখনো নেই।
এছাড়া ৭ জুন বাংলাদেশের ঢাকা ট্রিবিউন রিপোর্ট করে- “মানব পাচারের অভিযোগে লক্ষীপুর-২ আসনের এমপি কুয়েতে গ্রেফতার” অথচ তাঁর বিরুদ্ধে কুয়েতে মানব পাচার নিয়ে কোন মামলাই হয়নি।
শুরু হলো বাংলাদেশে এম পি পাপুলের বিরুদ্ধে নানা মনগড়া সংবাদ পরিবেশন।
৭ জুন দৈনিক ইত্তেফাক লেখে মানব ও অর্থ পাচারের অভিযোগে কুয়েতে সংসদ সদস্য কাজী পাপুল গ্রেফতার।
মানব পাচার আর অর্থ পাচারের কোন অভিযোগেই পাপুল এম পি’র বিরুদ্ধে দেয়া হয়নি, সেখানে কিছু শ্রমিক তাঁদের আকামা বা রেসিডেন্সি নবায়নে অতিরিক্ত টাকা দাবী করার কারনে শহিদ ইসলাম পাপুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনে, সেই অভিযোগের তদন্ত করতে গিয়ে কুয়েত সি আই ডি তাঁকে গ্রেফতার করে, কিন্তু সেই অভিযোগ প্রমানিত হয়নি, উল্টো যারা মিথ্যে সাক্ষী দিয়েছে, তাদের দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।
২ জুলাই দৈনিক দেশ রুপান্তর রিপোর্ট করে, “টাকা ছড়িয়ে আওয়ামীলীগ নেতাদের পকেট ভরেন এম পি পাপুল” কিন্তু শহিদ পাপুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বলেছেন- আওয়ামীলীগকে বিভিন্ন ভাবে শক্তিসগালী করতেই পাপুল অর্থ ব্যায় করেছেন, কারো পকেট ভরতে নয়। বিশ্বস্ত সুত্রে জানা গেছে উক্ত রিপোর্টে এম পি পাপুলের স্ত্রীর যে বক্তব্য দেয়া হয়েছে, তা তিনি কোনভাবেই দেননি।
কুয়েতের সি আই ডি এখন পর্যন্ত কোন ধরনের অভিযোগ বা মামলা পাপুল এম পি’র বিরুদ্ধে দায়ের করেনি, কিন্তু বাংলাদেশের মিডিয়াগুলো শাস্তির ধরন কি হতে পারে, সেটি নিয়ে রিপোর্ট করছে। ২ জুলাই বাংলাদেশ প্রতিদিন “কুয়েতে অভিযোগ প্রমাণ হলে কতদিন জেল হতে পারে এমপি পাপুলের? এই শিরোনামে প্রতিবেদন করেছে।
তার পরিবারের সদস্যরা জনানা, এভাবেই প্রতিদিনই ইলেকট্রনিক এবং প্রিন্ট মিডিয়া শহিদ পাপুলের নামে গল্প নির্ভর রিপোর্ট প্রকাশ করছে। তাহলে মিডিয়ার স্বাধীনতা মানে কি একজন জীবন্ত মানুষকে হত্যা করা? এই প্রশ্নই রেখেছেন এম পি পাপুলের পরিবারে সদস্যরা।

About News Desk

Leave a Reply