Breaking News
Home / ভিডিও / ১০টি জিনিস যা কখনো কারো সাথে শেয়ার করবেন না || পরিনাম ভয়াবহ ||

১০টি জিনিস যা কখনো কারো সাথে শেয়ার করবেন না || পরিনাম ভয়াবহ ||

শেয়ার শব্দটা আমাদের জীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। ইচ্ছায় হোক আর অনিচ্ছায় হোক আমরা সবসময় ব্যবহারকৃত খুঁটিনাটি জিনিষের কমবেশি শেয়ার করে থাকি। এই ধরুন তোয়ালে, গায়ে দেয়া কাথা, লুঙ্গি, হেড ফোন, টি শার্ট, খাবারের প্লেট সহ আরও অনেক কিছুই।

বিদেশে সবকিছুরই শেয়ারিং হয়। কিন্তু এর কারনেই ঘটে থাকে ভয়ঙ্কর সব সংক্রামক রোগ। যার মুল কারন এই সব খুঁটি নাটি জিনিষের শেয়ারিং।

ভিডিওটিতে বিস্তারিত দেখানো হয়েছে। আশা করি এই ভিডিওটি আপনার জীবন কিছুটা হলেও বদলাতে সাহায্য করবে। ভিডিওটি পোস্টের নিচে দেয়া আছে। সরাসরি ভিডিওটি দেখতে স্ক্রল করে নিচে চলে যান। 

অন্যরা যা পড়ছেঃ

 মায়ের লাশের সঙ্গে ৩০ বছর ধরে বসবাস মেয়ের!

মা মারা যাওয়ার পরেও তিনি তার সৎকার করেননি। বাড়িতেই রেখে দিয়েছেন লাশ। এভাবে কেটে গেছে দীর্ঘ ৩০ বছর। ততদিনে তার মায়ের লাশ কঙ্কাল হয়ে গেছে। সম্প্রতি ইউক্রেনের মেকোলাইভ শহরে এমন ঘটনার কথা জানা গেছে।

বয়স্ক ওই নারী একাই থাকতেন। কারও সঙ্গে মিশতেন না। নিজের ঘরের সামনের দরজাও পুরোপুরি খুলতেন না কখনও। যা পেনশন পেতেন তা দিয়েই চলতেন।

প্রতিবেশীরা কখনও কখনও দয়া করে তার দরজার সামনে খাবার রেখে যেত। কয়েক বছর আগে ওই বৃদ্ধার পা দুটি প্যারালাইজড হয়ে যায়। এর পর থেকে হুইল চেয়ারেই চলাফেরা করতেন তিনি। কিন্তু কয়েক দিন আগে সে শক্তিটুকুও হারান।

শেষ পর্যন্ত প্রতিবেশীদের কাছ থেকে একটি কল পেয়ে পুলিশ সে বাসায় যায়। ফ্ল্যাটের দরজা খোলার পর দেখা যায়, মেঝেতে পড়ে আছেন ৭৭ বছর বয়সী একজন বৃদ্ধা। আর পাশের ঘরে শায়িত অবস্থায় আছে একটি কঙ্কাল। তিনি জানান, কঙ্কালটি তার মায়ের।

পুলিশ যখন ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে তখন তিনি অসুস্থ ছিলেন। পরে তাকে দ্রুত হাসপাতালে পাঠানো হয়। ওই বৃদ্ধা পরে পুলিশকে জানান, তার মায়ের ৩০ বছর আগে মৃত্যু হলেও তিনি বিশ্বাস করেন এখনও বেঁচে আছেন তার মা।

About Admin Rafi

Leave a Reply