Breaking News
Home / লাইফস্টাইল / কতবার সহবাস করলে গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে!

কতবার সহবাস করলে গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে!

সহবাস করার সময় ঘণ্টায় দু-বার সহবাস করার চেষ্টা করুন। তাহলে উপকার পাবেন ছেলে-মেয়ে উভয়ই। সম্প্রতি লন্ডনের মিডলসেক্স হসপিটালের একজন ডাক্তার একটি গবেষণা থেকে এই তথ্যটির খোঁজ পেয়েছেন।

গবেষকরা জানতে পেরেছেন, ঘণ্টায় দু-বার সহবাস করলে মেয়েদের গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়। কারণ প্রথমবার যে শুক্রাণু বের হয় তার থেকে অনেক বেশি শক্তিশালী হয় দ্বিতীয়বার মিলিত হওয়ার পরের শুক্রাণুটি। গোলাম বাহাদুর নামে একজন গবেষকের মতে, গর্ভবতী হওয়ার জন্য এই পদক্ষেপ খুবই কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে।

যে সমস্ত মহিলারা সহজে গর্ভবতী হতে পারেন না, অথবা যাঁদের স্বাভাবিকের তুলনায় ভঙ্গুর হয়ে থাকে উদর তাঁরা ঘণ্টায় দু-বার করে সহবাস করলে খুব সহজেই গর্ভবতী হতে পারেন। এছাড়া দু-বারের বার যে শুক্রাণু নির্গত হয় তা প্রথমবারের থেকে অনেক বেশি শক্তিশালী হয় বলে এতে সন্তান সম্ভাবনার পরিমাণ অনেক বেড়ে যায়। বাচ্চাও যথেষ্ট হৃষ্টপুষ্ট হয়ে থাকে। গর্ভাবস্থায় ভ্রুণের নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনাও কমে যায়।

নিশ্চিন্তে অনিয়মিত পিরিয়ড নিয়মিত করার ৪টি সহজ ঘরোয়া উপায়!

মেয়েদের প্রায়ই একটি সমস্যায় পড়তে হয়, তা হল অনিয়মিত মাসিক। গর্ভধারণ ছাড়াও আরও কিছু কারণে এই সমস্যা হতে দেখা যায়। যেমন- অতিরিক্ত ওজন হ্রাস, স্ট্রেস, থাইয়রেড সমস্যা, মানসিক চাপ, ওভারির সমস্যা, অতিরিক্ত ব্যায়াম, হরমোন ভারসাম্যহীনতা ইত্যাদি নানা কারণে মাসিক অনিয়মিত হতে পারে।

মাসিক অনিয়মিত হলে দুশ্চিন্তার শেষ থাকে না। হঠাৎ করে আপনার মাসিক অনিয়মিত হওয়া শুরু করলে সেটিকে নিয়মিত করার সহজ কিছু ঘরোয়া উপায় রয়েছে। আসুন উপায়গুলো জেনে নেওয়া যাক।

১/ তিল এবং গুড়
তিল আপনার অনিয়মিত মাসিককে নিয়মিত করতে সাহায্য করবে। তিলের উপাদান হরমোন উৎপাদন করে থাকে। অল্প পরিমাণের তিল ভেজে গুঁড়ো করে নিন। এর সাথে এক চামচ গুড় মিশিয়ে নিন। এটি প্রতিদিন খালি পেটে এক চা চামচ করে খান। প্রতিদিন গুড় খেলেও আপনার মাসিক নিয়মিত হবে।

২/ আপেল সাইডার ভিনেগার
খাবার খাওয়ার আগে ১-২ টেবিল চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার পানিতে মিশিয়ে পান করুন। এটি রক্তের ইলসুলিন এবং ব্লাড সুগার কমিয়ে দিয়ে থাকে। যা মাসিক নিয়মিত করে থাকে।

৩/ টক জাতীয় ফল
টক জাতীয় ফল বিশেষ করে তেঁতুল মাসিক নিয়মিত করতে সাহায্য করে থাকে। চিনি মেশানো পানিতে তেঁতুল এক ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। এরপর এর সাথে লবণ, চিনি এবং জিরা গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এটি দিনে দুই বার পান করুন। এটি আপনার অনিয়মিত মাসিককে নিয়মিত করে দেবে।

৪/ ব্যায়াম
নিদিষ্ট কিছু ব্যায়াম যেমন লাফানো, নাচ ইত্যাদি করলে অনেক সময় মাসিক হয়ে যায়। এর কারণে পেশি বাঁধা পেয়ে থাকে যার কারণে পেশি সংকোচন শুরু করে, শরীরে রক্ত প্রবাহ কমিয়ে দিয়ে থাকে। ঋতুস্রাব শেষ হবার পরে ব্যায়াম করলে পরবর্তী সময়ে সঠিক সময়ে মাসিক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

আপনি যদি প্রায়ই অনিয়মিত মাসিক সমস্যায় ভুগে থাকেন, তবে বুঝতে হবে আপনার খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করার সময় হয়ে এসেছেন। খাদ্যতালিকায় শাক সবজি, ফল রাখুন। আনারস অনেক সময় অনিয়মিত মাসিক নিয়মিত করে দিয়ে থাকে।

About Admin Rafi

Leave a Reply