Breaking News
Home / ভিডিও / ক্যামেরায় ধরা না পড়লে আপনি কখোনোই বিশ্বাস করতেন না ঘটনাটি – পার্ট ৩ দেখুন

ক্যামেরায় ধরা না পড়লে আপনি কখোনোই বিশ্বাস করতেন না ঘটনাটি – পার্ট ৩ দেখুন

ক্যামেরায় ধরা না পড়লে আপনি কখোনোই বিশ্বাস করতেন না ঘটনা গুলো – পার্ট ২ঃ আজব এই দুনিয়া। রহস্য এর চারিদিকে। প্রতিনিয়ত আমাদের চারপাশে ঘটে চলেছে এমন সব রহস্যজনক ঘটনা যা অনেকেই বিশ্বাস করতে চাবেন না। তারপরও ঘটে বিভিন্ন

অদ্ভুত ঘটনা। বর্তমানে সিসি ক্যামেরা লাগানো থাকে সব জায়গায়। এসবে সিসি ক্যামেরায় মাঝে মাঝে ধরা পড়ে এমন সব আজব ঘটনা যা আপনি বিশ্বাস করতে পারবেন না। দেখুন এমনই কিছু ঘটনা যা ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। ক্যামেরায় ধরা না পড়লে আপনি বিশ্বাসই করতেন না।

ভিডিওটি পোষ্টের নিচে দেয়া আছে। ভিডিওটি দেখতে স্ক্রল করে পোষ্টের নিচে চলে যান।

আরো পড়ুনঃ

যেভাবে ভিলেন হয়েছিলেন মিশা সওদাগর
রুপালি পর্দার ‘ভয়ংকর খারাপ মানুষ’ মিশা সওদাগর চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেছিলেন ১৯৮৬ সালে। এফডিসি আয়োজিত নতুন মুখ কার্যক্রমে নির্বাচিত হন তিনি। ১৯৯০ সালে দেশের নামী চলচ্চিত্র নির্মাতা ছটকু আহমেদ পরিচালিত ‘চেতনা’ ছবিতে নায়ক হিসেবে অভিনয় করেন মিশা।

এরপর ‘অমর সঙ্গী’ ছবিতেও তিনি নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেন। কিন্তু দুটোর একটিতেও সফলতার মুখ দেখেননি তিনি পরবর্তীতে বিভিন্ন পরিচালক তাকে খলচরিত্রে অভিনয়ের পরামর্শ দেন। সেই পরামর্শ অনুযায়ী ১৯৯৪ সালে ‘যাচ্ছে ভালোবাসা’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে প্রথম খলনায়ক হিসেবে পর্দায় উপস্থিত হন মিশা।

পরে পরিচালক তমিজ উদ্দিন রিজভীর ‘আশা ভালোবাসা’ ছবিতেও তিনি ভিলেন চরিত্রে অভিনয় করেন। এই ছবির আউটডোর শুটিং শেষ করে ফিরে একে একে সাতটি ছবিতে খলনায়ক চরিত্রে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন মিশা।

এরপরই নায়ক মিশা হয়ে গেলেন ভিলেন মিশা সওদাগর। ইতোমধ্যে মিশা সওদাগর ৮০০-এর বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। ভিলেন হিসেবে বাংলা চলচ্চিত্রে নিজের অবস্থান পাকাপোক্ত করেছেন বহু আগেই। অভিনয়ের পাশাপাশি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন মিশা।

About Admin Rafi

Leave a Reply