Breaking News
Home / বাংলাদেশ / বিএনপি আন্দোলনে নামলে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা

বিএনপি আন্দোলনে নামলে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা

obaydulবিএনপির আন্দোলন রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করা হবে। তবে আন্দোলনের নামে সহিংসতা করতে গেলে অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গতকাল রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউতে বিআরটিএ’র জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে একথা বলেন। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে রাজনীতিবিদদের সংলাপ ব্যর্থ হলে বিএনপি আন্দোলনে যাবে- বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদের এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, মওদুদ সাহেবরা আন্দোলন করতে পারেন? আমি তো বুঝি না তারা কিভাবে করবেন। বিএনপি তো তাদের নিজের অফিসে বসে একে অন্যকে সরকারের দালাল বলে অভিহিত করে। তাদের নিজেদের মধ্যে এত সংশয়, অনাস্থা। তাদের মুখে আবার আন্দোলনের কথা! যাই হোক, অনেক দিন তাদের আন্দোলন-সংগ্রাম দেখি না। মওদুদ সাহেবকে কত আগে রাজপথে দেখেছি, সেটা আমার মনে নেই। উনিও আন্দোলনে নামুক না। ওনার (মওদুদ) যখন ইচ্ছা আন্দোলন করুক না। আমরা (আওয়ামী লীগ) তা রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করবো। উল্লেখ্য, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালী-৫ (কোম্পানীগঞ্জ, কবিরহাট ও সদরের একাংশ)। নির্বাচন কমিশনার নিয়োগে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বিএনপির সংলাপের আহ্বান প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য প্রেসিডেন্ট রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপের প্রয়োজন মনে করেছেন। তাই তিনি সংলাপ করেছেন। ৮ই ফেব্রুয়ারি প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ তিনজনের মেয়াদ শেষ। স্বল্প সময়ে নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ নিয়ে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আরেকটা সংলাপের সময়-সুযোগ কোনোটাই নেই। এটা অবান্তর কথা।
খোঁজ-খবর ছাড়া ছোট গাড়ির লাইসেন্স নয়
এদিকে খোঁজ-খবর ছাড়া ছোট যানবাহনের লাইসেন্স না দেয়ার জন্য বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) চেয়ারম্যানের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, প্রতিদিন ছোট গাড়ির লাইসেন্স দেয়ার পরিমাণ বাড়ছে, যা খুবই এলার্মিং। বিআরটিএ চেয়ারম্যানকে আমি নির্দেশ দিচ্ছি, যেন ছোট গাড়ির লাইসেন্স খোঁজ-খবর নিয়ে দেয়া হয়। তিনি বলেন, ‘ছোট ছোট গাড়ি ব্যাপক পরিমাণে চলতে দেখা যায়। এতে সড়কে অসহনীয় যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। সুতরাং কোন রাস্তায় কোন গাড়ি চলবে, কোনটা চলবে না এগুলো বিবেচনায় আনতে হবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, গাড়ি ব্যবহারে আমাদের সবাইকে সতর্ক এবং সংযমী হতে হবে। পরিবারপ্রতি গাড়ি ব্যবহার সীমিত করতে হবে। এ সময় মন্ত্রী জানান, শিগগিরই বিআরটিএ আইন সংসদে উত্থাপন করা হবে। আইনটি চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে। ক্যাবিনেটে অনুমোদন পেলেই সংসদে উত্থাপন করা হবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, মোটরসাইকেল চলাচলে উন্নতি হচ্ছে। এখনকার বেশিরভাগ মোটরসাইকেলে যাত্রী দুইজন। এর একজনের অবশ্যই হেলমেট থাকে। বিষয়টি আস্তে আস্তে মানুষের অভ্যাস গড়ে উঠবে। তবে রাজনৈতিক লোকের যারা মোটরসাইকেলে চলাচল করে তাদের বেশিরভাগ হেলমেট ব্যবহার করে না। এর অধিকাংশই তরুণ। তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে সড়কে যেসব মৃত্যু ঘটেছে, তার অধিকাংশই মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায়। নিরাপত্তার জন্য সবাইকে হেলমেট পরার আহ্বান জানান তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নারীদের জন্য বিআরটিসির ১৫টি বিশেষ গাড়ি রয়েছে। নতুন গাড়ি যোগ হলে সেখান থেকেও নারীদের জন্য গাড়ি আরো বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিআরটিএ চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান, পরিচালক (প্রশাসন) নাজমুল আহসান মজুমদারসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

About Saimur Rahman

Leave a Reply