Friday, June 14

গাইবান্ধায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিকউল্লাহ খান মাসুদ শিক্ষাবৃত্তি প্রদান

গাইবান্ধা থেকে আঃ খালেক মন্ডলঃ গাইবান্ধায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিকউল্লাহ খান মাসুদ শিক্ষাবৃত্তি প্রদান গাইবান্ধা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বৃহপতিবার দুপুরে গাইবান্ধা গ্লোব জনকণ্ঠের আয়োজনে দ্বিতীয়বারের মত জেলার অসহায় ১৫ জন শিক্ষার্থীর মাঝে শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক অলিউর রহমান এই শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করেন।
দৈনিক জনকণ্ঠের শিক্ষাসাগর কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর মো. ইকরামুল হকের সভাপতিত্বে ও গাইবান্ধা জনকণ্ঠের নিজস্ব সংবাদদাতা আবু কায়সার শিপলুর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক বলেন, জনকণ্ঠের এই শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করে অনেক অসহায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা করছে। বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আতিকউল্লাহ খান মাসুদ শিক্ষাবৃত্তি খুব নিখুঁতভাবে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থী বাছাই করে নানা অ লের প্রত্যন্ত এলাকার পিছিয়ে পড়া ও সুবিধা বি তদেরই নির্বাচন করে বৃত্তি প্রদান করে। অনেক বাবা টাকার কারনে সন্তানদের পড়াশোনা করাতে পারেনা। এতে করে অল্প বয়সেই তাদের মেধার বিকাশ ঘটাতে পারেনা। এ রকম বৃত্তির ব্যবস্থা চালু থাকলে আজকে যারা জনকণ্ঠের বৃত্তি পেল তারা অনন্য সাধারণ। এরকম বৃত্তি তারা ভবিষ্যতে আরও পাবে যদি নিয়মিত পড়াশোনাটা চালিয়ে যায়। প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষাসহায়তা ট্রাস্টও এমন বৃত্তি দেয় যা তোমরা কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলে পাবে। তবে ভালো ফলাফল করার আগে ভালো মানুষ হতে হবে। নিয়মিত স্কুলে গিয়ে দেশপ্রেম, মানবিকতা, সুকুমারবৃত্তির বিকাশের জন্য শ্রেণিকক্ষের পড়াশোনার বিকল্প নেই। কারণ একজন শিক্ষক শ্রেণিকক্ষে শুধু পুঁথিগত বিদ্যাই নয়, জীবনের সব অভিজ্ঞতা থেকে শেখান। তাই তোমরা সবাই পড়াশোনা চালিয়ে যাবে এবং স্মার্ট বাংলাদেশের একেকজন স্মার্ট নাগরিক হয়ে উঠবে এটাই আমার প্রত্যাশা। তিনি বলেন, জনকণ্ঠের এই উদ্যোগ অত্যন্ত প্রসংশনীয়।
দৈনিক জনকণ্ঠের শিক্ষাসাগর পাতার কো-অর্ডিনেটর ও অনুষ্ঠানের সভাপতি প্রফেসর মো. ইকরামুল হক বলেন, এই বৃত্তির ফলে যদি একজনও উপকৃত হয়, তাহলেই জনকণ্ঠ তার সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গায় সার্থ। এই বৃত্তি দান কিংবা সহায়তা কোনোটাই নয়। এটা একটা উৎসাহ মাত্র। আপনাদের ছেলেমেয়েরা যেন পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারে সে চেষ্টাই আমরা করছি। আগে আমরা মোবাইলে টাকা দিতাম, কিন্তু তা বাচ্চাদের হাতে পৌঁছাতো না। এখন থেকে আমরা ছাত্র-ছাত্রীদের হাতেই সরাসরি টাকা দিব, এর জন্য তাদের ব্যাংকে একাউন্ট করতে হবে। এই একাউন্ট কিভাবে করতে হয় সেটাও শেখার দরকার আছে। এখন থেকেই বাচ্চারা কিন্তু ব্যাংকে মানি ম্যানেজমেন্ট শিখতে পারবে। এবার দ্বিতীয় দফার রাজশাহী জেলার ১৫ জনকে বৃত্তি প্রদান করা হলো। এরা আগামী দুই বছর (২৪ মাস) বৃত্তি পাবে। গাইবান্ধার বৃত্তিপ্রাপ্তরা হলো
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০২২ সাল থেকে গ্লোব-জনকণ্ঠ শিল্পপরিবারের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আতিক উল­াহ খান মাসুদ শিক্ষাবৃত্তি দিয়ে প্রত্যন্ত অ লের সুবিধাবি ত শিক্ষার্থীদের সহায়তা করে আসছে। ২০২২ সালের মত এবারও রাজশাহী জেলার ১৫ জন সুবিধাবি ত শিক্ষার্থীকে এই বৃত্তি দেয়া হলো।
এছাড়া প গড়, নাটোর ও রাজশাহীতেও এই বৃত্তি দেয়া হচ্ছে। গত বছর থেকে গাইবান্ধাও ১৫ শিক্ষার্থী এ বৃত্তি পাচ্ছে। এখন ৩০ জন শিক্ষার্থী নিয়মিত পাবে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আতিকউল্লাহ খান মাসুদ শিক্ষাবৃত্তি।

Leave a Reply