Sunday, July 21

৩৭ নং ওয়ার্ড ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের দোয়া মাহফিল ও খাবার বিতরণ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে দিনমজুর, অসহায় ও দুস্ত মানুষের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করেছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী যুবলীগ।

মঙ্গলবার রাজধানীর সদর ঘাট ইস্টবেঙ্গল ইনিস্টিউট স্কুল মাঠে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের নিহত সকল শহীদদের স্মরণে দোয়া মাহফিল ও তবারক বিতরণ করা হয়।

যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নির্দেশে ১৫ আগস্ট আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে আওয়ামী যুবলীগের কর্মসূচির অংশ হিসেবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের অন্তর্গত ৩৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগ এই
দোয়া মাহফিল ও তবারক বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

৩৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগে সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আজিজের সভাপতিত্বে
মোঃ সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায়

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাঈনউদ্দিন রানা ও প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য ৩৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল রহমান মীয়াজী মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সহ-সভাপতি সোহরাব হোসেন স্বপন ,আবু সাঈদ মোল্লা,মোরসালিন আহম্মেদ,দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু, মাকসুদুর রহমান দপ্তর এমদাদুল হক এমদাদ, অর্থ সম্পাদক ফিরোজ উদ্দিন সায়মন,উপ দপ্তর সম্পাদক খন্দকার আরিফ উর জ্জামান,কোতয়ালী থানা আওয়ামী লীগ সাবেক সহ সভাপতি আলমগীর হোসেন,সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকু ইসলাম আকন্দ ,সাবেক কার্যকারি সদস্য,জাবেদ হোসেন মিঠু ,৩৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন,সাবেক সভাপতি হানিফ আকন্দ,সাবেক সভাপতি জাবের হোসেস পাপন,সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইবরাহিম হোসেন রনি সহ থানা ও ওয়ার্ডের নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা তাদের বক্তব্যে,
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের শহীদ সদস্যের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। সেদিন দেশে না থাকায় বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা বেঁচে যান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শোককে শক্তিতে রুপান্তরিত করে বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়ন করার লক্ষে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। শেখ হাসিনা বাংলাদেশে না আসলে এদেশের মানুষের ভাগ্য কখনো পরিবর্তন হতো না, বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হতো না। এদেশে যত উন্নয়ন অগ্রগতি হয়েছে সবই আওয়ামী লীগের হাত ধরে হয়েছে বলে তারা উল্লেখ করেন।

পরবর্তীতে দোয়া মাহফিল শেষে অসহায় দুস্ত দিনমজুর খেটে খাওয়া প্রায় এক হাজার মানুষের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়।

Leave a Reply