Wednesday, February 21

‘হায় রে মানুষ! হায় রে মানবতা! কোথায় আজ মনুষ্যত্ব?ঘটনাটি পাকিস্তান, ভিডিওটি একবার হলেও দেখবেন…

ভিডীওতি দেখতে হলে পোস্টের নিছে চলে যান

এই ভিডিওটি অনলাইন ইউটিউভ থেকে নেওয়া হয়েছে।
এই ভিডিও নিয়ে কারো আপত্তি থাকলে এর দায়ভার ইউটিউব চ্যানেল নিবে।

প্রেম করে বিয়ে করায় ভাতিজিকে খুন
প্রেম করে বিয়ে করায় সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় ভাতিজিকে কুড়াল দিয়ে এলোপাতারি কুপিয়ে হত্যা করেছে চাচা। নিহত মমতা খাতুন (২৬) সলঙ্গা থানার রানীনগর গ্রামের আব্দুল মজিদ মণ্ডলের মেয়ে এবং একই গ্রামের ছানোয়ার হোসেনের স্ত্রী। শুক্রবার (২ মার্চ) বেলা ১২টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এর আগে সকাল ৭টার দিকে বাড়ির পাশেই পুকুর পাড়ে তাকে কুপিয়ে আহত করেন চাচা আমির হোসেন। এ ঘটনার পর থেকেই চাচা আমির হোসেন পলাতক রয়েছে।

সলঙ্গা থানার ওসি মো. ওয়াহেদুজ্জামান জানান, প্রায় সাড়ে চার বছর আগে রানীনগর গ্রামের মোজাম মণ্ডলের ছেলে ছানোয়ার হোসেনের সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে করেন একই গ্রামের মজিদ মণ্ডলের মেয়ে মমতা খাতুন। ওই সময় পরিবার থেকে বিষয়টি মেনে না নেওয়ায় তারা ঢাকায় চলে যান। তারা এতদিন ঢাকায় ছিল। দীর্ঘদিন পর মমতার পরিবার এ বিয়ে মেনে নেওয়ায় তিনি বাবার বাড়ি বেড়াতে আসেন। শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে বাড়ির পাশের পুকুরে বাসন পরিষ্কার করতে যান মমতা। এ সময় পেছন থেকে চাচা আমির হোসেন কুড়াল দিয়ে তাকে এলোপাতারি কুপিয়ে আহত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতাল এবং পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (শজিমেক) ভর্তি করা হয়। পরে অপারেশন থিয়েটারে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।

ওসি আরও জানান, বগুড়া শজিমেকে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় সলঙ্গা থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। চাচা আমির হোসেনকে পুলিশ খুঁজছে।

Leave a Reply