Sunday, February 5

যে কারনে প্রান হারাল মেয়েটি। ভিডিওটি একটিবারের জন্য দেখুন ও সচেতন হন।

যোগাযোগের জন্য আমাদের সবাইকেই কোন না কোনোভাবে বাসার বাহিরে যেতে হয় আর বাহিরে যেতে হলেই আমাদেরকে কোন না কোন যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করতে হয়। রিকশা গাড়ি বাস ট্রেন অথবা প্লেন।

মোটকথা যে মাধ্যমেই উঠুন না কেন আপনাকে সতর্ক থাকতেই হবে। নচেৎ আপনাকেও প্রান হারাতে হবে এই মেয়েটির মত। জনসচেতনতার জন্য হলেও পোস্টটি শেয়ার করে সবাই সচেতন করুন।

ভিডিওতে দেখুন বিস্তারিত। ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন।

ভিডিওটি পোষ্টের নিচে দেয়া আছে। ভিডিওটি দেখতে স্ক্রল করে পোষ্টের নিচে চলে যান।

আরো পড়ুনঃ

স্ত্রীর সম্ভ্রম রক্ষা করতে গিয়ে জেলে স্বামী

আজ বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শিল্পী খাতুন বলেন, আমার একমাত্র ছেলে রাকিবকে প্রতিদিন সকালে আমি স্কুলে পৌছে দিয়ে আসি। আসা যাওয়ার পথে মৃত. জব্বার মুন্সির ছেলে রেজাউলের সাথে আমার প্রতিনিয়ত দেখা হত। কয়েকদিন পূর্বে রেজাউল আমাকে রাস্তায় একা পেয়ে কু-প্রস্তাব দেয়। ওইদিন বাড়ি এসে আমি আমার স্বামীকে বিষয়টি জানায়। এরপর রেজাউলের কাছে যেয়ে আমার স্বামী আর কখনো এধরনের প্রস্তাব না দেওয়ার জন্য রেজাউলকে নিষেধ করে।

এঘটনায় চিহ্নিত চোরাকারবারি রেজাউল ইসলাম ও তার সহযোগী এড. মিজান আমার স্বামীকে পুলিশ দিয়ে আটক করায় এবং ৩ দিন পর মিথ্যা চুরির মামলায় জেলে পাঠিয়ে দেয়। আমার স্বামী শহরের বকুল তলার মোড়ে রোম টেইলার্সে লন্ড্রীর কাজ করে। তার নামে ইতোপূর্বে কখনো কোন অভিযোগ ছিলো না। আমাকে কু-প্রস্তাব দেওয়ার প্রতিবাদ করায় মিথ্যা চুরির মামলায় তাকে জেলে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া এড. মিজান আমার স্বামীর অন্য ভাইদেরও মিথ্যা মামলায় জড়ানোর জন্য পায়তারা করছে।

তিনি আরোও বলেন, রেজাউল তার বাড়িতে চুরি হয়েছে বলে দাবি করছেন। অথচ তার বাড়িতে চুরি হয়েছে এমন ঘটনা এলাকাবাসী কেউ জানে না। পুলিশ দোকান থেকে আমার স্বামীকে গত ১৯ মার্চ সন্ধ্যায় আটক করে। এরপর এড. মিজান ও রেজাউলের কথামত পুলিশ ৩ দিন পর আমার স্বামীকে থানায় আটক রাখে।

পরে তার নামে মিথ্যা চুরির মামলা দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। যা সম্পূর্ণ অন্যায় ও অনৈতিকভাবে করা হয়েছে। আমি আমার স্বামীর নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং চোরাকারবারি রেজাউল ও বহু অপকর্মের হোতা এড. মিজানের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবিতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

Leave a Reply