Thursday, February 2

নিজেই ভিডিও করে ইন্টারনেটে ছেড়ে দিয়েছে ! ভিডিওটি নিজের দায়িত্বে দেখবেন

নিজেই ভিডিও করে ইন্টারনেটে ছেড়ে দিয়েছে ! ভিডিওটি নিজের দায়িত্বে দেখবেন

অবশেষে জয়ের দেখা পেল মোহামেডান

মোহামেডানের গায়ে ঐতিহ্যের রংটা প্রায় বিলীন। এবারের দলবদলে নির্মোহ ভাব এতটাই দৃশ্যমান ছিল যে প্রিমিয়ার ক্রিকেটে ক্লাবটির এবারের অবস্থান নিয়ে সংশয় শুরু থেকেই। সে কারণেই তৃতীয় ম্যাচে মোহামেডানের প্রথম জয়ের দেখা পাওয়াটাও শিরোনাম বটে! গতকাল তাদের হাসি ফোটার দিনে প্রথম হারের স্বাদ নিতে হয়েছে শেখ জামাল ধানমণ্ডিকে। একই দিনে জিতেছে অগ্রণী ব্যাংক ও লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ।

বিকেএসপিতে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া মোহামেডানের ওপর ২৮৭ রানের বোঝা ঠিকই চাপিয়ে দিয়েছিল তরুণদের নিয়ে গড়া শেখ জামাল ধানমণ্ডি। ১০ রানে এক ওপেনারকে তুলেও নিয়েছিল ক্লাবটি। কিন্তু মোহামেডানের পুরনো সৈনিক শামসুর রহমান ও পাকিস্তানি রিক্রুট সালমান বাটের ১১৯ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটি জয়ের পথ দেখিয়েছে মোহামেডানকে। সালমান বাটকে সেঞ্চুরিবঞ্চিত করার সামান্য পরে রনি তালুকদারকেও ফিরিয়ে দেয় শেখ জামাল। তবে রকিবুল হাসানকে সঙ্গী করে আরেকটি শতরানের জুটিতে মোহামেডানকে এই মৌসুমে প্রথম জয়ের স্বাদ পাইয়ে দিয়েছেন শামসুর। ১২৪ বলে ৯ বাউন্ডারি আর ৫ ছক্কায় অপরাজিত ১২৩ রানের ইনিংসের জন্য ম্যাচসেরার পুরস্কারও জিতেছেন তিনি।

অবশ্য সকালের সেশনে শেখ জামালকে স্বপ্ন দেখিয়েছেন অধিনায়ক নুরুল হাসান। টপ অর্ডারের সৈকত আলী, হাসানুজ্জামান ও রাকিন আহমেদের কল্যাণে বড় ইনিংসের দিকেই এগোচ্ছিল শেখ জামাল। কিন্তু মিডল অর্ডারে ধস নামায় সেই সম্ভাবনা মুছে যাওয়ার মুখেই ব্যাটে ঝড় তোলেন নুরুল হাসান। ৫৯ বলে তাঁর ৭৭ রানই প্রতিদ্বন্দ্বিতার শক্তি জুগিয়েছিল শেখ জামালকে। অবশ্য সেই শক্তি নাশ হয়েছে শামসুরের ব্যাটে।

বিকেএসপির আরেক মাঠেও সেঞ্চুরি হয়েছে গতকাল। তবে তৌহিদ হূদয়ের অপরাজিত ১২২ রানও জেতাতে পারেনি শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবকে। ভারতীয় রিক্রুট উদয় কাউলের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ১৩৪ রানের জুটি গড়া তৌহিদ ইনিংসের শেষার্ধে আর কারো কাছ থেকে প্রত্যাশিত সমর্থন পাননি। তাতে ৬ উইকেটে ২৬৪ রানেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় শাইনপুকুরকে। ভালো শুরুর পর মিডল অর্ডারে পথ হারানোর উপক্রম হয়েছিল অগ্রণী ব্যাংকের। তবে ধীমান ঘোষ (৮৫*) ও সালমান হোসেনের (৬৫*) মধ্যকার ১৪৩ রানের ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ৫ উইকেটের অনায়াস জয় তুলে নিয়েছে অগ্রণী ব্যাংক।

ওদিকে ফতুল্লায় ওপেনার আব্দুল মজিদের (১১০) সেঞ্চুরি আর অধিনায়ক নাঈম ইসলামের ফিফটিতে ৬ উইকেটে ২৩৯ রান করেও জিতেছে রূপগঞ্জ। শুরুতে মোহাম্মদ শহিদের পেস আর ইনিংসের মাঝপথে সাইফ হাসান ও মোশাররফ হোসেনের বাঁহাতি স্পিনে ইনিংসের পুরোটা জুড়েই ধুঁকেছে প্রাইম ব্যাংক, যা শেষ হয়েছে ২১৫ রানে গুটিয়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :
শেখ জামাল-মোহামেডান : শেখ জামাল ৫০ ওভারে ২৮৭/৯ (নুরুল ৭৭, রাকিন ৬৪, সৈকত ৫০, তাইজুল ২/৪০, শুভাশীষ ২/৬৫)। মোহামেডান ৪৮.১ ওভারে ২৯০/৫ (শামসুর ১২৩*, সালমান ৮১, রকিবুল ৬৩, রবিউল ২/৫৫)। ফল : মোহামেডান ৫ উইকেটে জয়ী। ম্যান অব দ্য ম্যাচ : শামসুর রহমান।

শাইনপুকুর-অগ্রণী ব্যাংক : শাইনপুকুর ৫০ ওভারে ২৬৪/৬ (তৌহিদ ১২২*, উদয় ৭৭, রাজ্জাক ৩/৫৬, শফিউল ২/৪০)। অগ্রণী ব্যাংক ৪৬.৫ ওভারে ২৬৮/৫ (ধীমান ৮৫*, সালমান ৬৫*, আজমির ৫১, শুভাগত ২/৫৯)। ফল : অগ্রণী ব্যাংক ৫ উইকেটে জয়ী। ম্যান অব দ্য ম্যাচ : ধীমান ঘোষ।

লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ-প্রাইম ব্যাংক : রূপগঞ্জ ৫০ ওভারে ২৩৯/৬ (মজিদ ১১০, নাঈম ৫১, দেলোয়ার ৩/৪০)। প্রাইম ব্যাংক ৪৮.২ ওভারে ২১৫/১০ (আল আমিন ৬৮, শহিদ ৩/৩২, আসিফ ৩/৪৭, মোশাররফ ৩/৫৯)।

Leave a Reply