Monday, January 30

১১ বছরের নিচে এই ভিডিওটি কেউ দেখবেনি না

ভিডীওতি দেখতে হলে পোস্টের নিছে চলে যান

এই ভিডিওটি অনলাইন ইউটিউভ থেকে নেওয়া হয়েছে।
এই ভিডিও নিয়ে কারো আপত্তি থাকলে এর দায়ভার ইউটিউব চ্যানেল নিবে।

গ্রিন টি’র যত গুণ
গ্রিন টি-এর জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলেছে, বিশেষ করে স্বাস্থ্য সচেতন মানুষদের কাছে। বলা যায়, ফিগার ঠিক রাখতে এখন অনেকেই গ্রিন টি-র দিকে বেশি ঝুঁকছেন। জাপানি দার্শনিক কাকুসো ওকাকুরা বলেছেন, গ্রিন টি প্রথমে ছিল ওষুধ তারপর হয়েছে পানীয়। একটি গবেষণায় দেখা গেছে, যারা দিনে দুই কাপের বেশি গ্রিন টি পান করেন তারা মানসিকভাবে অনেক বেশি ফিট।

ওজন কমায় গ্রিন টি
গ্রিন টি হজমসহায়ক। এর পলিফেনল শরীরের ফ্যাট অক্সিডেশন প্রক্রিয়াকে আরও কার্যকর করে খাবার থেকে ক্যালরি তৈরি প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে। ফলে দেহে অতিরিক্ত চর্বি জমতে পারে না। এক গবেষণায় দেখা গেছে, গ্রিন টি এক দিনে ৭০ কালরি পর্যন্ত ফ্যাট বার্ন করে। তার মানে নিয়মিত গ্রিন টি পানে বছরে ৫-৮ কেজি পর্যন্ত ওজন কমানো সম্ভব।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে
গ্রিন টি শরীরে রক্তের গ্লুকোজ এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। খাবার গ্রহণের পরে রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়ে, যা প্রত্যক্ষভাবে নিয়ন্ত্রণ করে গ্রিন টি।

হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়
বিজ্ঞানীরা মনে করেন, গ্রিন টি শরীরের প্রতিটি শিরায় কাজ করে। ফলে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে। তাই কোনো কারণে রক্ত চাপে পরিবর্তন হলেও কোন ধরনের ক্ষতি করে না। তাছাড়া এই চা রক্ত জমাট বাঁধতে দেয় না। ফলে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভবনা কমে যায়।

খাদ্যনালীর ক্যান্সার রোধ
গ্রিন টি খাদ্যনালীর ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। এছাড়াও ভালো কোষগুলোর ক্ষতি না করে ক্যান্সারের কোষ নির্মূল করে থাকে গ্রিন টি।

Leave a Reply