Breaking News
Home / রাজনীতি / ভৈরবে যুবলীগের মামলায় স্হানীয় ৩ সাংবাদিকসহ বিএনপি’র ২শতাধিক নেতাকর্মী আসামী।

ভৈরবে যুবলীগের মামলায় স্হানীয় ৩ সাংবাদিকসহ বিএনপি’র ২শতাধিক নেতাকর্মী আসামী।

আশরাফুল আলম,কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি ||কিশোরগঞ্জ জেলা ভৈরব উপজেলায় স্থানীয় তিন সাংবাদিকসহ বিএনপি’র ১৯৮ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে যুবলীগ। গত ১৮ নভেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় শহরের চন্ডিবের গ্রামে যুবলীগ কর্মীদের মারধর ও মোটরসাইকেল ভাংচুরের অভিযোগে এনে গত ২৩ নভেম্বর শুক্রবার পৌর যুবলীগ সভাপতি ইমরান হোসেন ইমন বাদী হয়ে ভৈরব থানায় এ মামলাটি করেন। মামলা নং-৩৩।
জানাযায়, মামলা ভৈরব পৌর বিএনপির সভাপতি হাজী মো: শাহিনকে প্রধান অভিযুক্ত করে ৯৮ জনের নাম উল্লেখ্যসহ আরো অজ্ঞাত ১শ জন নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়। মামলায় হয়রানির উদ্দেশ্যে দৈনিক দিনকাল ভৈরব প্রতিনিধি সোহেলুর রহমান, এশিয়ান টেলিভিশন ও দৈনিক নয়াদিগন্ত ভৈরব সংবাদদাতা আলহাজ্ব সজীব আহমেদ ও দৈনিক ইনকিলাবের ভৈরব সংবাদদাতা এম.আর রুবেলকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। যুবলীগ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে হাসিল করতে মামলায় সাংবাদিকদের মিথ্যা আসামী করার ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকের স্ট্যাটাসে জানতে পেরে সাংবাদিক সমাজসহ ভৈরবের সাধারণ মানুষজন ও ফেসবুকে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। এ ঘটনায় ভৈরবসহ কিশোরগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলার সাংবাদিকরা নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

মামলার বাদী ইমরান হোসেন ইমন বলেন, আমরা কয়েকজন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মী নিয়ে মটরসাইকেল নিয়ে চন্ডিবের সড়ক দিয়ে যাচ্ছিলাম।পথেমধ্যে বিএনপির সমর্থকরা আমাদের উপর হামলা চালায়।এতে আমাদের মটরসাইকেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়।আমি ও ৯নং ওয়ার্ড সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব প্রধান আহত হয়।এজন্য এ মামলাটি করানো হয়।

উল্লেখ্য, গত ১৮ নভেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় শহরের চন্ডিবের গ্রামে বিএনপির উঠান বৈঠকে যুবলীগ কর্মীরা পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালিয়ে মারধর করলে দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে ৪ পুলিশ সদস্য সহ বিএনপির ৭ নেতাকর্মী ও যুবলীগের ৪ কর্মী আহত হয়। পরে রাতেই যুবলীগ ও আওয়ামীলীগের কর্মীরা দ্বিতীয় দফায় ভৈরব বাজারস্থ বিএনপি অফিস, বিএনপি সমর্থিত লোকজনের ভেনিস বাংলা রেস্টুরেন্ট, পেয়াজ-রশুনের পাইকারি দোকান, ফার্মেসী ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারসহ বেশকিছু অটোরিক্সা ভাংচুর করে।

ভৈরব উপজেলা বিএনপি সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন তাঁরা হামলা করল,ভাংচুর করল,দুইটি মামলাও করল,আমরা এজাহর নিয়ে থানায় যাওয়ার সাহস পাচ্ছি না।

দুইপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে গত ১৯ নভেম্বর বিএনপির ৪৮ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ ৩’শ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ বিএনপি নেতাকর্মীদেরকেই নির্বাচনী মাঠ থেকে দুরে সরিয়ে রাখতে ভৈরব যুবলীগ ২৩ নভেম্বর শুক্রবার তিন সাংবাদিকসহ ৯৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ১’শ জন বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

About News Desk

Leave a Reply